যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার পাশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ

0
324

টঙ্গী প্রতিনিধি:

মোঃ শাহজাহান একজন যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা। তিনি এখন বড়ই অসহায়! তার আদি নিবাস চাঁদপুর হলেও নদী ভাঙ্গনের কবলে পরে নিঃস্ব হয়ে এখন গাজীপুরের ২১নং ওয়ার্ডে বাউপারা সরকারি খাস জমিতে একটি টিনের ছাপরাতে বউ, ছেলে মেয়ে নিয়ে কোন রকম দিন গুনছেন। সংসারে তার ৪ ছেলে ৬ মেয়ে এবং স্ত্রী ও নিজেকে নিয়ে মোট ১২ জন সদস্য নিয়ে বসবাস করে যাচ্ছেন। সরকারি ভাতা পেলেও সংসারের ঘানি টেনে ঋনের বুঝায় আজ নিরুপায় এই বীর মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে যেসকল সনদ পেয়েছিলেন ৭১ এর পর, সেই সকল মুল্যবান কাজপত্র এখনও যত্নে আগলে রেখেছেন শাহজাহান।     

আগে সরকারি ভাতা পেতেন ১০,০০০/ টাকা কিন্তু এখন পান ১২,০০০/ টাকা। টাকার সংখ্যা কিছুটা বাড়লেও, কমেনি সংসারের চাহিদা। কোন রকমে দিন পার করে যাচ্ছেন এই শাহজাহান। বয়স বাড়ার সাথে সাথে নিজেই নিথর হয়ে যাচ্ছেন। 

রহুল আমিন অসহায় মানুষের পাশে দাড়ায় সেটা নতুন কিছু নয়। তবে বরাবরের মতই শাহজাহানের খোঁজ পেয়ে ছুঁটে যান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি মোঃ রুহুল আমিন। শাহজাহানের পরিবারের পাশে গিয়ে দাঁড়ান তিনি। পরবর্তীতে শাহজাহানের সব কথা শুনে তার পরিবারের দায়িত্ব নেন। পরিবারের আগামী এক মাসের জন্য সকল প্রকার বাজার, পোশাক সহ অন্যান্য দ্রবাদি দিয়ে আসেন রহুল আমিন। সেই সাথে শাহজাহান কে বলেন, প্রতি মাসের ১ তারিখে তার সাথে যোগাযোগ করতে এবং সংসারের মাসিক বাজার নেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। শাহজাহানের পুরো পরিবারের চিকিৎসার সকল দায়িত্ব নেয়েছেন এই রুহুল আমিন।   
ছাত্রলীগের সহ সভাপতির মোঃ রুহুল আমিনের এমন মহানুভবতা দেখে কেঁদে ফেলেন এই যোদ্ধাহত বীর মুক্তিযুদ্ধা শাহজাহান। তিনি বলেন আমি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সারা দিয়ে রনাঙ্গনে সামনে থেকে যুদ্ধ করেছি। আমার খোঁজ কোনো নেতা নেন নি। তবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবার আমার খোঁজ খবর নিয়েছে আমি ছাত্রলীগ পরিবারের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করি। শাহজাহান আরও বলেন, আজ থেকে আমার মাথার উপরে অনেক বড় বোঝা কমে গেলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here