ইউপি চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতেই কাটা হলো যুবকের দুহাত

0
95

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় রুবেল আলী (২৮) নামে এক যুবকের দুই হাত কব্জি থেকে কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপজেলার নয়ালাভাঙ্গা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার ভোরে রুবেলকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি এখন ওই হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

রুবেলদের বাড়ি নয়ালাভাঙ্গা গ্রামে। বাবার নাম খোদাবক্স। রুবেল একজন আম ব্যবসায়ী।

রুবেলের অভিযোগ, তার চাচাতো ভাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবদুস সালামের সঙ্গে নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিনের বিরোধ রয়েছে। শিবগঞ্জ সীমান্তের চরপাকা গরুর খাটাল নিয়ে তাদের এ বিরোধ। এর জের ধরে চেয়ারম্যানের নির্দেশে তার হাত কেটে দেয়া হয়েছে।

রাইজিংবিডিকে রুবেল জানান, বুধবার রাত ১০টার দিকে রুবেল এবং তার দুই বন্ধু রবিউল ও হাবু চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত কার্যালয়ের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। চেয়ারম্যান তখন তার লোকজন দিয়ে তাদের আটকান এবং একটি ঘরে নিয়ে তাদের রাখা হয়।

রুবেল ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ জানালে চেয়ারম্যান তাকে চুপচাপ বসে থাকতে বলেন। এরপর রাত ২টার দিকে রুবেলকে হাত বেধে স্কুলের পেছনে নিয়ে তার হাতে কেটে ফেলার নির্দেশ দেন চেয়ারম্যান।

তখন হোসেন আলী ও জিয়া নামের দুই ক্যাডার তার দুই হাতের কব্জি কেটে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে চিৎকার শুনে রুবেলের বন্ধুরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। তিনি ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত। ২০১৭ সালে তার ইউপির নয় সদস্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন যে, চেয়ারম্যান তাদের গুলি করে হত্যার হুমকি দিয়েছেন।

এলাকার এক আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের একটি মামলায় এ বছরের মার্চে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছিল।

রুবেলের হাত কেটে ফেলার বিষয়ে কথা বলতে একাধিকবার ফোন করা হলেও চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন ধরেননি। তাই তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

শিবগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আতিকুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে জানান, সকালে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে কাউকে আটক করা হয়নি। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা তারা তদন্ত করে দেখছেন। মামলা হলে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here