গুইমারার রামছু বাজারে লটারীর নামে চলছে জুয়া

0
133

ডেস্ক: গুইমারা রামছু বাজারে লটারীর নামে চলছে জুয়া। গুইমারায়‘রামছুবাজার জৈবসার উৎপাদনকারী সমিতি’ লটারীর নামে ৭৮লক্ষ টাকার, ৩ হাজার গ্রাহক থেকে সপ্তাহে ১শত টাকা হারে ৩ ক্ষ টাকা নিয়ে চালানো হচ্ছে অবৈধ এ লটারী।
জানা যায়, শীলং জুয়াটি মোবাইল পদ্ধতির মাধ্যমে লটারী ভাগ্য পরিক্ষার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতিনিয়ত। লটারীর নামে জুয়ার কোন ধরনের অনুমতি নেই। প্রশাসনের নাকের উপর জুয়া আসর নিয়ে মিশ্র প্রতিত্রিয়া তৈরী হয়েছে।
এ বিষয়ে গুইমারা থানার ওসি’কে লটারী বন্ধে ব্যাবস্থা প্রহণে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিদ্যুৎ কুমার বড়ুয়া বলেন, বিষয়টি জেনেছি। শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
সূত্র জানায়, সদস্যের জন্য বিশ/পচিশ হাজার টাকার পুরস্কারের লোভনীয় প্রতারণা ও দুর্নীতির ফাঁদ পাতা হয়েছে এ অবৈধ লটারীতে। এছাড়াও প্রতি সপ্তাহের ড্রর পূর্বে টাকা পরিশোধের শর্ত জুড়ে দেওয়াসহ পরিচালনা কমিটির যে কোন সিধান্ত চুড়ান্ত বলে গন্য হবে বলে কার্ডে উল্লেখ করা হয়।
লটারী পরিচালনায় ১টি কমিটি করা হয়েছে প্রতি রবিবার বিকেল ৩টায় রামছু বাজার জৈব সার উৎপাদনকারী ক্লাবে অনুষ্ঠিত হওয়া এ লটারীতে টাচ্ মোবাইল, উন্নত মানের রাইস কুকার, চায়না কম্বল, ডিনার সেটসহ আরো কিছু লোভনীয় পুরস্কারের নাম প্রদর্শন করে লটারীর নামে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করা হচ্ছে।
সপ্তাহে ৩লক্ষ টাকা উত্তোলন কওে ২/৩ হাজার টাকা দামের মোবাইল পুরস্কার দেওয়া হবে বলে উল্লেখ রয়েছে।
প্রতি সপ্তাহে ১শ টাকা হারে ৩হাজার সদস্যর কাছ থেকে উত্তোলন করা হচ্ছে ৩ লক্ষ টাকা। আর মোট ২৬ সাপ্তাহে উত্তোলন করা হবে ৭৮ লক্ষ টাকা।
লটারীটি ২৬ সপ্তাহের মধ্যে ইতি মধ্যে কয়েক সপ্তাহ অতিবাহিত হয়ে গেলেও প্রশাসনের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত কোন ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।
ইতি পূর্বেও দেওয়ান পাড়া ক্লাবে এধরনের একটি লটারীর নামে জুয়া চালিয়ে অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

অনলাইনে এই জুয়ার সাথে যুক্ত হওয়া যায় তাই সহজেই এতে জড়িয়ে পড়ছে উঠতি বয়সি তরুন-তরুনী, যুবক, বৃদ্ধ,সকল শ্রেণীর মানুষ। এতে করে বিপাকে পড়তে হচ্ছে অভিবাবকদের। আর, যুব সমাজকে আকৃষ্ট করতে প্রতিনিয়ত এই খেলায় পরিবর্তন আনছে ব্যবসায়ীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here