পঞ্চগড়ে বিয়ের দাবিতে সন্তানসহ প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে স্কুলছাত্রী!

0
136

উমর ফারুক পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি :

স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে মফিজার রহমানের সঙ্গে দেখা হতো অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীর। প্রতিনিয়ত দেখা-সাক্ষাৎকারের পর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে বিয়ের প্রলোভনে পড়ে মফিজারের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়ায় স্কুলছাত্রী। এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন তিনি।

এ খবর পাওয়ার বাড়ি থেকে উধাও হন প্রেমিক। তাই বিয়ের দাবিতে তিনদিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে রয়েছেন স্কুলছাত্রী। এমন ঘটনা ঘটেছে পঞ্চগড় সদরের সাতমেড়া ইউপির লইপাড়া এলাকায়। অভিযুক্ত মফিজার রহমান ওই এলাকার মো. জয়নাল আলীর ছেলে।ভুক্তভোগী জানান, মফিজারের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক দেড় বছর। দুজনের বাড়ি পাশাপাশি গ্রাম থাকায় রাতে স্কুলছাত্রীর বাড়িতে আসা-যাওয়া করতো সে। তাই তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়।

এতে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে দাবি করেন তিনি।  তিনি আরো জানান, প্রেমিক মফিজার তার অন্তঃসত্ত্বার খবর পেয়ে তেতুলিয়া উপজেলায় বিয়ে করতে যায়। তাই বাধ্য হয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে এখনো মফিজারের বাড়িতে অনশনে রয়েছেন। মফিজার বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার জীবনকে ধ্বংস করেছে। তাকে ছাড়া অন্য কোথাও বিয়ে করবেন না বলে জানান তিনি। ভুক্তভোগীর মা জানান, একদিন রাতে বাড়ির বাইরে একটি ছেলের সঙ্গে মেয়েকে কথা বলতে দেখেন। টের পেয়ে ছেলেটি পালিয়ে যায়। কিছুদিন পর পাশের বাড়ির লোক মেয়ের শারীরিক অবস্থার পরির্বতনের কথা জানান।

পরে একটি ক্লিনিকে টেস্ট করা হলে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা ধরা পড়ে। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আশরাফুল বলেন, এ ব্যাপারে কোনো প্রদক্ষেপ নিতে পারবো না। সাতমেড়া ইউপির চেয়ারম্যানের সঙ্গে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়। পঞ্চগড় সদর থানার ওসি আক্কাছ আলী বলেন, অনশনের ব্যাপারে কোনো খবর এখনো পাইনি। কেউ অভিযোগ দিলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here