চলনবিলবাসীর ভাগ্য উন্নয়নে ১৮ ঘন্টা কাজ করেন প্রতিমন্ত্রী পলক

0
304

আরিফ: সিংড়া প্রতিনিধিসিংড়া উপজেলার উন্নয়নের রূপকার তরুণ প্রজন্মের অহংকার প্রতিমন্ত্রী এড.জুনাইদ আহমেদ পলক, স্বাধীনতা ৩০ বছরে সিংড়া উপজেলা যে উন্নয়ন হয়নি মাত্র ১১ বছর তার থেকে বেশি উন্নয়ন করেছে সিংড়া উপজেলায় ,যার ফলে সিংড়ার প্রতিটি মানুষের কাছে হয়ে ওঠেছে শ্রদ্ধা পাত্র, শুধু নিজ দলের নেতাকর্মীদের কাছে নয় অন্য দলের নেতা কর্মীদের কাছে হয়ে ওঠেছেন আস্থার ঠিকানা,যার ফলে গত ১১ বছরে সিংড়াতে কোন রাজনৈতিক সহিংসতায় তৈরি হয়নি,তার উন্নয়ন ও আচার আচরণ ব্যবহারে মুগ্ধ করেছে সবার মন।
এইতো কয়েক বছর আগের কথা সিংড়া বাসস্ট্যান্ডে কি যে দুর্গন্ধ রাস্তার পাশে নর্দমায় চাষ হতো বিদেশি মাগুর মাছ  এর খাবার হিসেবে মরা গরু কুকুর ভেসে থাকতো,কি যে বিশ্রী পরিবেশ, আপনি কিছু খেতে চাইলে নর্দমার পাশের হোটেলে খেতে হতো, আর এখন সেখানে তৈরি হয়েছে অত্যাধুনিক বাসস্ট্যান্ড তৈরি হয়েছে আধুনিক মসজিদ কমপ্লেক্স।
 চিকিৎসা সেবার জন্য তৈরি করেছেন অত্যাধুনিক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স,এই কেন্দ্র আধুনিক চিকিৎসা সামগ্রী প্রদান ,স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি সেবা প্রদানের জন্য ৩টি উন্নতমানের এ্যাম্বুলেন্স প্রদান, বিশেষায়িত ডায়াবেটিস হসপিটাল ,নার্সিং ইনস্টিটিউট (প্রস্তাবিত) ,৪২টি কমিউনিটি ক্লিনিক সংস্কার,

 আধুনিক সিংড়া উপজেলা প্রশাসন ভবন ,মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স,ফুটওভার ব্রিজ, ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, পৌর শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন,শহর রক্ষা বাঁধ, বদলে দিয়েছে পুরনো সিংড়া পৌর শহরের চিত্র।
সিংড়া উপজেলা বেকার যুবকদের কমসংস্থান এর জন্য তৈরি হচ্ছে প্রায় ২২৪ কোটি টাকা ব্যায়ে একটি শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার, একটি হাইটেক পার্ক, একটি টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার,এতে প্রায় ২০,০০০ তরুণ তরুণীর কমসংস্থান হবে।

সিংড়া আগে এক প্রবাদ ছিল ” বর্ষায় লা(নৌকা) আর শুকনায় পা”এখন চলন বিলের মধ্যে দিয়ে তৈরি হয়েছে ২২কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে সিংড়া বারুহাস-তাড়াস পর্যন্ত ১৪.৬৫০কিলোমিটার অত্যাধুনিক সাবমার্সিবল রাস্তা, রাস্তাটি তৈরি হওয়ার ফলে কয়েকটি ইউনিয়নে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে,সিংড়া উপজেলা উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা জন্য গত ১০ বছরে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার পাকা রাস্তা নির্মাণ ও ১৩৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন।
এছাড়া সিংড়া উপজেলা ৭ কোটি ৭৮ লাখ টাকা ব্যয়ে জামতলী বাজার এলাকায় ১০ এমভি ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র তৈরি হয়েছে, যার ফলে সিংড়া উপজেলা শতভাগ বিদ্যুৎ হয়েছে,

উপজেলা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নতুন ভবন নির্মাণ, উচ্চ শিক্ষার জন্য গোল ই আফরোজ সরকারী কলেজ,বামিহাল রহমত ইকবাল কলেজ,বিলহালতি ত্রিমোহনী ডিগ্রী কলেজে অনার্স কোর্স চালু করুন,৫৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন এবং ৬৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালু করেন।হাজারো ব্যস্ততার মধ্যে সপ্তাহে সরকারি ছুটির দুই দিন সময় দেন এলাকায় ।


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here