উন্নয়ন কাজের কোটি কোটি টাকা লুটপাট : গুইমারায় সড়ক উন্নয়নে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

0
284

খাগড়াছড়ি :: খাগড়াছড়ি জেলায় সরকারি নানা উন্নয়ন কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে কাজের নামে বছরে কোটি কোটি টাকা লুটপাট করছে একশ্রেণীর দুর্নীতিবাজ ঠিকাদাররা।

সরকারি নির্দেশনাসহ কাউকেই তোয়াক্কা করছে না। তাদের কাছে অনিয়মেই যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে। খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলায় সড়ক উন্নয়ন কাজের এ ধরনের একটি অনিয়মের চিত্র ধরা পড়ে। গুইমারার-মুসলিমপাড়া হয়ে মনিপাড়া সড়কের ইট সলিং ও ড্রেনের কাজে এ অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ উঠে। প্রায় অর্ধ কোটি টাকারও অধিক টাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন এ সড়কটির কাজে অনিয়মের বিষয়ে সরেজমিন তদন্ত করলেই বেড়িয়ে আসবে থলের বিড়াল।

এ সকল ঘটনার ফলেই সরকারি অর্থ ব্যায়ের পরও গ্রামীর অবকাঠামোর উন্নয়নের পরও সাধারন মানুষের দুর্ভোগ যেন বছর পার না হতেই সড়কের বেহাল দশা ও জনভোগান্তি আরো চরম আকার ধারন করে। এলাকাবাসী অভিযোগ, ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে মুসলিমপাড়া হয়ে মনিপাড়া থেকে পরশুরামঘাট যাওয়ার রাস্তাটি ইট সলিং ও ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নামে মাত্র কাে করে সড়ক উন্নয়নে নয়-ছয় করে ব্যবহার অনুপযোগী ইট ও কাঁদাযুক্ত বালু দিয়ে কাজ করায় এ সড়ক সাধারন মানুষের কোন উপকারেই আসবেনা। বরং জ্বলে যাবে সরকারের এ মোটা অঙ্কের অর্থ বরাদ্দ। জানা যায়, পাবর্ত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড অর্থায়নের এই সড়ক নির্মাণ কাজের জায়গায় রাস্তার দুই পাশে ইটের সলিং করতে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা অধিক ব্যয়ে দরপত্র আহবান করা হয়। এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, ইট ভাটা থেকে নিম্নমানের ইট ব্যবহার করা হচ্ছে সড়ক উন্নয়নের কাজে। পাকা সড়কের দুই পাশে ১ নাম্বার ইট বিছানোর কথা থাকলেও নি¤œ মানের ইট বসানো হচ্ছে। দুই স্তরের ইট বসানোর পরে সেখানে খাটি বালু দেয়ার নিয়ম থাকলেও ব্যবহার করা হচ্ছে ধুলা মিশ্রিত ভীট বালু।

এতে প্রতিটি ইটের মাঝে অন্তত ২ ইঞ্চি ফাঁকা রেখে তা সাথে সাথে মাটি দিয়ে ঢেকে ফেলা হচ্ছে। এমনি ভাবে নানা অনিয়মের মধ্য দিয়ে দ্রুত শেষ করা হচ্ছে এই সড়ক উন্নয়নের কাজ। এ প্রতিনিধি ঠিকাদার মো: সেলিম এর সাথে মুঠোফোনে কাজের অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিম্ম মানের ইট গুলো সড়িয়ে নেওয়া হবে। সে সাথে কাজে নির্মানের ব্যবহিৃত ইটগুলো কি করবেন সে বিষয়ে জানতে চাইলে তার কোন সৎ উত্তর না দিয়ে মুঠো ফোন রেখে দেন তিনি।

সড়ক উন্নয়নে কাজের বিষয়ে গুইমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) তুষার আহমদ’কে জানানো তিনি এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here